বাজেট বেস্ট Symphony i97?

কিছুদিন পূর্বে Symphony Z15 রিলিজ করে সিম্ফনি চমক দেখিয়েছিলো। এবার তারা নতুন আরেকটি চমক এনেছে, Symphony i97। তবে এটিও আরেকটি লো বাজেট ডিভাইস, তবে, দাম অনুযায়ী ফোনটি চমকপ্রদই মনে হচ্ছে।

5.7″ ডিসপ্লে, 2GB DDR4 র‌্যাম, 1.6 GHz Octa Core প্রসেসর, Android 9.0 Pie, 4G, গ্রাডিয়েন্ট ডিজাইন এবং সবকিছু মাত্র ৭,৪৯০ টাকায়। সব মিলিয়ে স্পেকওয়াইজ এই বাজেটে বাজারের বেশিরভাগ ফোনকে এটি সহজেই হারিয়ে দেওয়ার মত।

বলে রাখি, ফোনটি এই পোস্ট লেখা শুরুর সময়, অর্থাৎ, আজ দুপুরের দিকে তাদের ওয়েবসাইটের আপকামিং সেকশনে ছিলো। কিন্তু পোস্ট পাবলিশ করার আগেই তারা এটি রিলিজ করে দিয়েছে।

Symphony Z15 এর সাথে কনফিগারেশনে এটি খুব বেশি পিছিয়ে নেই, যদিও দামের পার্থক্য ২০০০ টাকা। তাই কিছুটা তুলনা থাকবে পোস্টজুড়ে।

এক নজরে

  • 5.7’’ HD+ IPS Full Vision 2.5D Display
  • Front 8MP + Rear 13MP Camera
  • ROM 16GB + RAM 2GB DDR4
  • SC9863A (28nm 1.6 GHz Octa Core) Proccessor
  • 3200mAh Battery
  • VoLTE Enabled (Depends on Network)
  • Fingerprint
  • Dual SIM 4G Standby

ডিজাইন

Symphony i97

সামনের দিকে এবার কোন নচ থাকছে না, এই বাজেটের বেশিরভাগ ফোনের মত সাধারণ ন্যারো বেজেল থাকছে। তবে ব্যাক পার্টের ডিজাইনে Symphony Z15 এর সাথে মিল আছে। উপরে বাম দিকে ভার্টিকালি থাকছে ক্যামেরা ও ফ্ল্যাশলাইট। তার নিচে মাঝে ফিঙ্গারপ্রিন্ট। তার নিচে মডেল নাম্বার এবং নিচের দিকে Symphony লোগো। তবে যেটা ভালো লাগছেনা, একেবারেই না, সেটা হলো, স্পিকার থাকছে ব্যাক পার্টে লোগোর নিচে, যেটা অনেক সময়ই বিরক্তির কারণ হয়। দুটি কালার অপশন থাকছে, যে দুটি অপশন Z15 এ-ও ছিলো। ক্যারিবিয়ান ব্লু ও ক্র্যানবেরি রেড।

ডিসপ্লে

Symphony i97

i সিরিজের এই পর্যন্ত ৭টি মডেলে (i15, i18, i65, i72, i95, i110, i20) 5.45″ ডিসপ্লে ব্যবহার করা হয়েছে। শুধু i সিরিজই নয়, V141, V142, G100, R40 সহ বেশ কিছু ডিভাইসেই তারা এই সাইজের ডিসপ্লে ব্যবহার করেছে। তবে এবার ডিসপ্লে থাকছে কিছুটা বড়, 5.7″। এই বাজেটে HD+ ই আশা করা যায়, এবং হ্যাঁ, এই ফোনে HD+ রেজ্যুলেশনের ডিসপ্লে থাকছে এবং এর PPI 282।

পারফর্মেন্স

বাজেট অনুযায়ী, বেশ ভালো একটা প্রসেসর থাকছে এতে। Unisoc SC9863A এই বাজেটে মোটেও খারাপ নয়। এটা একটা অক্টা কোর প্রসেসর যার ক্লক স্পিড 1.6 GHz। আর্কিটেকচার 28 nm এর, যেটা শুনতে হয়ত ভালো লাগবে না কিন্তু পারফর্মেন্সের দিক দিয়ে এটা Helio A22 থেকে বেটার। এর সাথে থাকছে 2GB DDR4 র‌্যাম। এই বাজেটে DDR4 র‌্যাম দেওয়ায় প্রশংসা করতেই হচ্ছে।

ও, হ্যাঁ, বলে রাখি, পারফর্মেন্সে এটি স্পেকওয়াইজ এর চেয়ে ২০০০ টাকা বেশি দামের Symphony Z15 এর অনুরূপ এবং Tecno Camon isky3 থেকে সামান্য বেটার।

স্টোরেজ

ফোনটিতে থাকছে 16GB ইন বিল্ট স্টোরেজ, আর তা 64GB পর্যন্ত বাড়িয়ে নেওয়া যাবে।

নেটওয়ার্ক

ফোনটি 4G সমর্থিত এবং ডুয়াল সিম 4G স্ট্যান্ডবাই সুবিধা রয়েছে। এছাড়া, এতে VoLTE সমর্থন থাকছে, যেটি আপাতত বাংলাদেশে গুরুত্বপূর্ণ নয়।

ব্যাটারি

ফোনটিতে 3200mAh Li-Polymer ব্যাটারি সংযুক্ত রয়েছে, যেটি নন রিমুভেবল। তাছাড়া ডিসপ্লে রেজ্যুলেশন HD+ হওয়ায় বেশ দীর্ঘ সময় ব্যাকআপ পাওয়া যাবে। ডে টু ডে ইউজে এক চার্জে একদিন চলে যাওয়ার কথা। স্ট্যান্ডবাই মোটামুটি ২২০ ঘন্টা পর্যন্ত ব্যাকআপ পাওয়া যাবে বলে সিম্ফনি ক্লেইম করছে।

ক্যামেরা

রেয়ার ক্যামেরাতে এতের থাকছে 13MP অটো ফোকাস একটি ক্যামেরা। Z15 এর মত কোন ডেডিকেটেড ডেপথ সেন্সর থাকছে না, যদিও পোর্ট্রেট মোড থাকছে। এই ফোনের AI প্রসেসরের কারণে ছবি তোলায় এডভান্টেজ পাওয়া যাবে। ইমেজ প্রসেসিংয়ের জন্য এই ফোনের প্রসেসর বেশ ভালো। এই ক্যামেরায় ওয়েল ডিটেইলড উজ্জল প্রাণবন্ত ছবি তোলা যাওয়ার কথা। AI সিন ডিটেক্ট করে সে অনুযায়ী ছবি প্রসেস করতে সক্ষম।

সামনে থাকছে 8MP ক্যামেরা, তবে সম্ভবত এতে AI সুবিধা থাকছে না। সাথে একটি সেলফি ফ্ল্যাশও থাকছে। সব মিলিয়ে Z15 এর মত এখানে ফ্রন্ট ক্যামেরাকে ড্রব্যাক বলা যাচ্ছে না।

ক্যামেরা অ্যাপার্চার কত তা এখনও তারা জানায়নি। যাই হোক, এই ফোনে একটি বিশেষ ফিচার থাকছে, অফ স্ক্রিন ফটো ক্যাপচার। অর্থাৎ, স্ক্রিন বন্ধ থাকা অবস্থাতেও ছবি তোলার সুযোগ থাকছে।

সিক্যুরিটি

Symphony i97 এ ফিঙ্গারপ্রিন্ট সিক্যুরিটি থাকছে। এর ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সরটি মাল্টি ফাংশনাল। অর্থাৎ, ফোন আনলকের পাশাপাশি এতে ছবি ক্যাপচার, ন্যাভিগেশন জাতীয় ফাংশন থাকবে। খুব ছোট হলেও, এটা ব্যবহারিক ক্ষেত্রে অনেক কাজে দেয়।

পাশাপাশি টিপিক্যাল ক্যামেরা বেজড ফেস আনলক থাকছে, যেটা সম্ভবত ভালো আলো ছাড়া কাজের হবে না।

সেন্সর

প্রক্সিমিটি, লাইট, গ্রাভিটি আর ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর থাকছে এতে। আসলে, এই বাজেটে, কিছু বলার তেমন সুযোগ থাকে না। কিন্তু কম্পাস সেন্সরটা আমার মনে হয়, থাকলে ভালো হত। আর সাথে জাইরোস্কোপ সেন্সর থাকলে তো পুরাই জুশ ব্যাপার ছিলো। কিন্তু এই দামে আসলে এতকিছু এক্সপেক্টেশনের সুযোগ নেই।

অন্যান্য তথ্য

160g ওজনের ফোনটি প্লাস্টিক বিল্ড হবে, এটা অনুমান করা কঠিন নয়। জীবনকে স্মার্ট করতে স্মার্ট কন্ট্রোল থাকছে এতে, যার মধ্যে থাকতে পারে কিছু স্মার্ট জেসচার, স্মার্ট মোশন, স্মার্ট একশন, পকেট মোড প্রভৃতি। আর হ্যাঁ, অ্যান্ড্রয়েডের লেটেস্ট ভার্সন Android™ 9.0 Pie™ পেয়ে যাবেন এখানে।

মতামত

কথাগুলো একপেশে মনে হতে পারে, কিন্তু সত্যি বলতে খারাপ লাগার মত তেমন কিছুই আমি এই ফোনে পাই নি। তাই এক কথায় বলবো, বাজেট বেস্ট, অন্তত কাগজে কলমে। যদি সিম্ফনি ব্র্যান্ডের সাথে আপনার কোন সমস্যা না থাকে, তবে বর্তমান বাজারে এর চেয়ে ভালো অপশন এই বাজেটে আমার চোখে পড়েনি।

তবে, অবশ্যই বাজেট বাড়ালে আপনি ভালো ফোন পেতে পারেন। কিন্তু, যদি আপনার বাজেট ৭-৮ হাজারের মধ্যে হয়, আমার মনে হয় এটা আপনাকে অবশ্যই বিবেচনায় রাখতে হবে।

তবে, এর সাথে আমি বলব, যেহেতু ফোনটা আজই রিলিজ হলো, সেহেতু যদি আপনি কিনতে চান, আরেকটু অপেক্ষা করুন। কয়েকজন রিভিউয়ারের হ্যান্ডস অন রিভিউ দেখে নিন। কেননা, আমার কথাগুলো সব কাগজে কলমের কথা। বাস্তব অভিজ্ঞতায় একটু ভিন্নতা বা কোন সমস্যা থাকতেই পারে, যেগুলো হয়ত, তাদের অভিজ্ঞতায় উঠে আসবে।

আর হ্যাঁ, ফোনটির ডিটেইলস এখানে পাবেন, পোস্টের ছবিগুলোও ওখান থেকেই নেওয়া। আর এই পোস্টে শুধুমাত্র ফিচারগুলোর বিশ্লেষণ করেছি ও মতামত দিয়েছি। এটা কোন হ্যান্ডস অন রিভিউ না।

পোস্টটি ভালো লেগেছে? লাইক দিন আমাদের ফেসবুক পেজে এবং আমাদের সাথে থাকুন।

এগুলোও দেখুন, ইন শা আল্লাহ ভালো লাগবে:

About the Author: তাহমিদ হাসান

এইতো, প্রতি ষাট সেকেন্ডে জীবন থেকে একটি করে মিনিট মুছে যাচ্ছে, আর এভাবেই এগিয়ে চলেছি মৃত্যুর পথে, নিজ ঠিকানায়। জীবন বড় অদ্ভুত, তাই না?

You May Also Like

Leave a Reply

avatar
  Subscribe  
Notify of