পেঙ্গুইনীয় (পর্ব-১৩): ডিস্ট্রো পরিচিতি – মানজারো

এখন আমরা আলোচনা করব মানজারো ওএস নিয়ে। এর আগে যে ৪টি ডিস্ট্রো নিয়ে আমরা আলোচনা করেছি, সেগুলো থেকে মানজারো অনেকটা ভিন্ন। কারণ, সে ডিস্ট্রোগুলো ছিলো উবুন্টু পরিবারের আর মানজারো একটি আর্চভিত্তিক ডিস্ট্রো। আর্চ নিয়ে যদি বলি, আর্চ অসাধারণ একটা লিনাক্স ডিস্ট্রো, তবে গুরুদের জন্য। আর্চ শুরুতে শুধুই কমান্ড লাইন ধরিয়ে দিবে, এবং সবকিছু আপনাকে নিজের মত করে গুছিয়ে নিতে হবে। অর্থাৎ, শক্তিশালী এই ডিস্ট্রোটি নবাগতদের জন্য নয়। ইন্সটলেশন ও ব্যবহারের জন্য যথেষ্ট দক্ষতা প্রয়োজন।

মানজারোতে আর্চের সুবিধাগুলো পাওয়া যায়, আবার ব্যবহারও কঠিন নয়। তাই বেশ জনপ্রিয় জার্মানভিত্তিক এই ডিস্ট্রোটি। উবুন্টু ভিত্তিক ডিস্ট্রোগুলোর সাথে তুলনা করলে আর্চভিত্তিক হওয়ার সুবিধা ও অসুবিধা দুটিই আছে। একটি বড় পার্থক্য হলো, উবুন্টু পয়েন্ট রিলিজ আর আর্চ বা মানজারো রোলিং রিলিজ। অর্থাৎ, মানজারোর কোন বিশেষ রিলিজ শিডিউল নেই, বরং ক্রমাগত আপডেট ও আপগ্রেড হতে থাকে। বিভিন্ন সফটওয়্যার আপডেটও অনেক দ্রুত পাওয়া যায়।

সবচেয়ে জনপ্রিয় ডেস্কটপ লিনাক্স ডিস্ট্রো হিসেবে উবুন্টু এবং উবুন্টুভিত্তিক ডিস্ট্রোগুলোতে কমিউনিটি সাপোর্ট খুবই ভালো, প্রচুর ফোরাম ও ফেসবুক গ্রুপ আছে, কোন সমস্যায় সার্চ করলে সহজেই সমাধান পাওয়া যায়। মানজারোর কমিউনিটি উবুন্টুর মত তত বড় না হলেও এটা লিনাক্সের জগতে খুব পরিচিত নাম আর এখানেও সাপোর্ট নিয়ে চিন্তা নেই। এর বাইরে, আর্চউইকিমানজারো উইকিইউজার গাইড বেশ ডিটেইলড এবং হেল্পফুল।

মানজারোর সবচেয়ে আকর্ষণীয় ফিচার সম্ভবত AUR সমর্থন। AUR হলো Arch User Repository। অন্যান্য ডিস্ট্রোগুলোর মত মানজারোর রিপোজিটরীতে সবচেয়ে প্রয়োজনীয় ওপেন সোর্স সফটওয়্যারগুলো পাওয়া যায়। কিন্তু রিপোজিটরীতে পৃথিবীর সব অ্যাপ উবুন্টুতে যেরকম PPA সমর্থন আছে, মানজারোতে রয়েছে AUR। পার্থক্য হলো, PPA গুলো আইসোলেটেড, একটি PPA-তে একটি বা কয়েকটি অ্যাপ থাকে। তবে AUR সেন্ট্রালাইজড।

AUR থাকায় মানজারোতে সফটওয়্যার খুঁজে পাওয়া একদম সহজ। মূল রিপোজিটরীতে নেই এমন সফটওয়্যারগুলো খুব সহজেই AUR-এ পাওয়া যায়। এরকম সেন্ট্রালাইজড একটি রিপোজিটরী ব্যবহারের অভিজ্ঞতা বেশ চমৎকার করে দেয়। যখন লিখছি, তখন 66607টি প্যাকেজ রয়েছে AUR-এ।

অসুবিধাও অবশ্য একটু আছে। যেমন, রোলিং রিলিজ হওয়ায় দেখা যায় প্রতি মাসে আপডেটে-ই কয়েক জিবি চলে যায়। যদিও আপডেটের জন্য ফোর্স করা হয় না, তারপরও যারা লিমিটেড কিংবা ধীরগতির ইন্টারনেট ব্যবহার করেন, তাদের জন্য পয়েন্ট রিলিজ এদিক দিয়ে সুবিধাজনক। তাছাড়া, স্ট্যাবিলিটির জন্য রোলিং রিলিজ থেকে পয়েন্ট রিলিজ হওয়া ভালো। আবার AUR যেহেতু একটি পাবলিক রিপো, তাই এখানে নিরাপত্তার কিছুটা রিস্ক থাকে।

মানজারো একটি পূর্ণাঙ্গ মডার্ন ডেস্কটপ প্রভাইড করে। মাল্টিমিডিয়া ও ড্রাইভার ইন্সটল বেশ সুবিধাজনক। ইন্সটলেশনের সময়ই ফ্রি অথবা ননফ্রি (এখানে ননফ্রি অর্থ প্রপ্রাইটরী, টাকা পয়সার বিষয় না) ড্রাইভার নির্বাচনের সুযোগ রয়েছে। যাদের হার্ডওয়্যারে (যেমন NVIDIA গ্রাফিক্স কার্ড) ননফ্রি ড্রাইভার প্রয়োজন, তারা নির্বাচন করে নিতে পারেন। কিছু ডিস্ট্রিবিউশনে ননফ্রি ড্রাইভারগুলো পরবর্তীতে ইন্সটল করে নিতে হয়, যে ঝামেলাটি এখানে নেই। একইভাবে কিছু প্রপ্রাইটরী মাল্টিমিডিয়া কোডেক এখানে সংযুক্ত।

মানজারো বেশ কিছু ডেস্কটপ ইন্টারফেসে পাওয়া যায়। এর মধ্যে কেডিই, গ্নোম ও এক্সএফসিই অফিসিয়াল এবং এলএক্সডিই, মাতে, এলএক্সকিউট, সিনামন ও বাজ্বি ডেস্কটপ কম্যুনিটি এডিশন হিসেবে পাওয়া যায়।মানজারোর প্রতিটি ডেস্কটপ আউট অফ দি বক্স বেশ চমৎকার। আপনি অবশ্যই নিজের মত কাস্টমাইজড করতে পারেন, তবে প্রথম নজরে ভালো লেগে যাওয়ার গুরুত্ব আলাদা, নয় কী?

এর বাইরে রয়েছে আরো কিছু উইন্ডো ম্যানেজারভিত্তিক এডিশন ও একটি আর্কিটেক্ট এডিশন এডভান্সড ইউজারদের জন্য। বিশ্বস্ততা ও সাপোর্টের দিক দিয়ে অফিসিয়াল ও কম্যুনিটি রিলিজগুলোর বিশেষ পার্থক্য নেই। এগুলো একই রিপো ব্যবহার করে এবং মানজারো মেইনটেইনারদের দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয়।

মানজারো এডিশনগুলোর দুধরণের আইএসও প্রভাইড করে। রেগুলার ও মিনিমাল। মিনিমাল আইএসও-তে গুরুত্বপূর্ণ ইউটিলিটি, ওয়েব ব্রাউজার এগুলো বাদে কোন ব্লটওয়্যার প্রি-ইন্সটল্ড নেই। অন্যদিকে রেগুলার আইএসওতে গ্রাফিক্স, অফিস সংক্রান্ত সফটওয়্যার অন্তর্ভুক্ত।

সফটওয়্যার ম্যানেজার হিসেবে এখানে প্রিইন্সটল্ড আছে Pamac। ইন্টারফেস তত রঙচঙে না হলেও ব্যবহার সহজ আর অন্যান্য অনেক গ্রাফিকাল সফটওয়্যার ম্যানেজারগুলোর তুলনায় ফাস্ট কাজ করে। এটার একটা সুবিধা হলো অনেক সফটওয়্যার নির্বাচন করে একসাথে ইন্সটল করা যায় এবং AUR, Snap, Flatpak খুব সহজেই এনাবল, ডিজেবল করা যায়।

তবে, মানজারোর সাথে দুটো বড় রকম সমস্যায় আমি পড়েছি, যা অবশ্যই উল্লেখ করতে হচ্ছে। একটি হলো, আমার প্রিন্টার (HP LaserJet P1102) মানজারোতে ব্যবহার করতে পারিনি, কিন্তু উবুন্টুসহ অন্যান্য ডিস্ট্রোতে ঠিকভাবেই সমর্থিত। আর এর চেয়ে বড় সমস্যা হলো, আমার ডেস্কটপের ওয়াইফাই রিসিভার মানজারোতে কখনো কাজ করে, কখনো করে না। এ নিয়ে বেশ অসুবিধা বোধ করেছি।

বেশিরভাগ ক্ষেত্রে এরকম কোন সমস্যা হয়ত হবে না। তারপরও, নতুন অবস্থায় অর্থাৎ লিনাক্স চালানো শুরু করার জন্য উবুন্টুভিত্তিক কোন ডিস্ট্রিবিউশন দিয়ে শুরু করাটাই সাধারণত পরামর্শ দেওয়া হয়। যাই হোক, আপনার যদি পছন্দ হয়, তাহলে মানজারো বেছে নিতেই পারেন!

✓ AUR সমর্থন
✓ মাল্টিমিডিয়া কোডেক সংযুক্ত
✓ সুন্দর
✓ সুবিধাজনক সফটওয়্যার ম্যানেজার

Series Navigation<< পেঙ্গুইনীয় (পর্ব-১২): ডিস্ট্রো পরিচিতি – জরিন ওএসপেঙ্গুইনীয় (পর্ব-১৪): ডিস্ট্রো পরিচিতি – সোলাস >>
0 0 vote
Article Rating
Default image
তাহমিদ হাসান
এইতো, প্রতি ষাট সেকেন্ডে জীবন থেকে একটি করে মিনিট মুছে যাচ্ছে, আর এভাবেই এগিয়ে চলেছি মৃত্যুর পথে, নিজ ঠিকানায়। জীবন বড় অদ্ভুত, তাই না?
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x