পেঙ্গুইনীয় (পর্ব-০৯): ডিস্ট্রো পরিচিতি – উবুন্টু

উবুন্টুর যাত্রা যখন শুরু হয় ক্যালেন্ডারে তখন ২০০৪ সাল, ডেস্কটপের জগতে লিনাক্স তখনো প্রায় অচেনা। সার্ভার বা সুপার কম্পিউটারের অতি প্রফেশনাল জগতেই লিনাক্সের ঘোরাফেরা। সেখান থেকে ডেস্কটপে লিনাক্সকে সহজলভ্য করার জন্য উবুন্টুর অবদান অনেক বেশি। আর এই দিনগুলোতে গড়ে ওঠা বিশাল ইউজার কমিউনিটি নিয়ে লিনাক্সের জগতে বেশ পাকাপোক্ত অবস্থান ক্যানোনিকেলের এই অপারেটিং সিস্টেমটির। আজও লিনাক্স ডিস্ট্রো নিয়ে কথা বলতে হলে এখনো উবুন্টুর নাম সবার আগে চলে আসে।

এখন সময় এসেছে কিছু লিনাক্স ডিস্ট্রোর সাথে পরিচিত হওয়ার। শুরুটা করছি উবুন্টুকে দিয়েই। উবুন্টু ডেবিয়ানকে ভিত্তি করে গড়ে তোলা হয়েছে। অর্থাৎ, উবুন্টু ডেবিয়ান পরিবারের সদস্য। তবে ডেবিয়ানের তুলনায় উবুন্টু অনেক ইউজার ফ্রেন্ডলি ও ব্যবহার করা সহজ।

উবুন্টু (oǒ’boǒntoō) শব্দটা শুনতে একটু খটমটে, না? খটমটে অথবা যেরকম যেরকমই হোক না কেন, এর অর্থটা বেশ চমৎকার। প্রাচীন আফ্রিকান শব্দটির ইংরেজি দাঁড়াবে, ‘Humanity to Others’, সরলভাবে বাংলা করলে ‘সবার জন্য মানবতা’। এর আরেকটা অর্থ আছে, I am what I am because of who we all are, সকলের জন্যই আমি আমার মত। আর এই স্পিরিটকে কম্পিউটারের জগতে নিয়ে এসেছে উবুন্টু।

উবুন্টু ২০.০৪
উবুন্টু

এটি একটি পয়েন্ট রিলিজ ডিস্ট্রো। বছরে (এপ্রিল ও ডিসেম্বর মাসে) দুটি করে নতুন রিলিজ আনে উবুন্টু, যেগুলোতে ৯ মাস করে সাপোর্ট প্রদান করা হয়। অন্যদিকে, ২ বছর পরপর এলটিএস এডিশন আনে তারা, যেখানে সাপোর্ট দেওয়া হয় অন্তত ৫ বছর। যারা সবচেয়ে বেশি স্ট্যাবিলিটি পেতে পছন্দ করেন এবং প্রডাক্টিভিটি সংক্রান্ত কাজের জন্য কয়েক মাস পরপর আপগ্রেড দিতে ইচ্ছুক নন, তাদের জন্য এলটিএস সংস্করণ বিশেষভাবে উপযুক্ত। আর যারা লেটেস্ট টেকনোলজির সাথে আপ টু ডেট থাকতে চায়, তারা রেগুলার রিলিজগুলো ব্যবহার করতে পারে।

উবুন্টুতে গ্নোম (Gnome) ডেস্কটপ ব্যবহার করা হয়েছে। তবে উবুন্টুতে ব্যবহৃত গ্নোম বেশ কাস্টমাইজড, বেশকিছু এক্সটেনশন ও বাড়তি ফিচার যুক্ত করা হয়েছে। এছাড়া আরো কিছু এডিশন আছে, যেগুলোকে উবুন্টু ফ্লেভার বলা হয়। এর মধ্যে রয়েছে উবুন্টু, কুবুন্টু, লুবুন্টু, জুবুন্টু, উবুন্টু মাতে, উবুন্টু বাজ্বি যারা যথাক্রমে গ্নোম, কেডিই, এলএক্সকিউট, এক্সএফসিই, মাতে ও বাজ্বি ডেস্কটপ এনভায়নমেন্ট ব্যবহার করে।

এছাড়া আরো কিছু আনঅফিসিয়াল ফ্লেভার আছে, উল্লেখযোগ্য দুটি হলো ডিপিন ডেস্কটপ এনভায়রনমেন্ট (DDE) এর সাথে সাথে উবুন্টু ডিডিই রিমিক্স, সিনামন ডেস্কটপের সাথে উবুন্টু সিনামন। আরো দুটি অফিসিয়াল ফ্লেভারও রয়েছে, যেগুলো বিশেষ গোষ্ঠী বা কাজের জন্য। উবুন্টু স্টুডিও, যারা মাল্টিমিডিয়া নিয়ে কাজ করে, তাদের জন্য বিশেষায়িত। বর্তমান সংস্করণ পর্যন্ত এখানে এক্সএফসিই ডিই ব্যবহার হয়েছে, তবে পরবর্তী সংস্করণে কেডিই-তে সুইচ করার কথা আছে। উবুন্টু কিলিন, ইউকেইউআই ডেস্কটপ, যেটি উবুন্টুর চাইনীজ ভ্যারিয়েন্ট।

আমরা এর আগে ডেস্কটপ এনভায়নমেন্ট নিয়ে ধারণামূলক আলোচনা করেছি, পরবর্তীতে জনপ্রিয় ডেস্কটপ এনভায়রনমেন্টগুলো নিয়ে আরো বিস্তারিত আলোচনা করার ইচ্ছা আছে। যাই হোক, এডিশন ভেদে প্রি-ইন্সটলড সফটওয়্যারে কিছুটা তারতম্য থাকলেও, মোটামুটি সব সফটওয়্যারসহ একটা কমপ্লিট পিসি পাওয়া যাবে উবুন্টু ইন্সটলেশনের সাথে সাথে। এর মধ্যে আছে ফাইল ম্যানেজার, লিব্রে অফিস, ওয়েব ব্রাউজার ফায়ারফক্স, ইমেইল ক্লায়েন্ট, ডকুমেন্ট রিডার, ইমেজ ভিউয়ার, অডিও ভিডিও প্লেয়ার প্রভৃতি।

Series Navigation<< পেঙ্গুইনীয় (পর্ব-০৮): রিলিজ শিডিউলপেঙ্গুইনীয় (পর্ব-১০): ডিস্ট্রো পরিচিতি – পপ ওএস >>
0 0 vote
Article Rating
Default image
তাহমিদ হাসান
এইতো, প্রতি ষাট সেকেন্ডে জীবন থেকে একটি করে মিনিট মুছে যাচ্ছে, আর এভাবেই এগিয়ে চলেছি মৃত্যুর পথে, নিজ ঠিকানায়। জীবন বড় অদ্ভুত, তাই না?
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x