ঘাস নিয়ে অল্প কিছু ফ্যাক্টস…

গরু ঘাস খায়, তাছাড়া উপদেশ হিসেবে ঘোড়ার জন্য ঘাস কাটার পরামর্শ দেওয়া আমাদের সমাজে বহুল প্রচলিত। ঘাসের দেখা পেতে আমাদের সাত সমুদ্দুর তেরো নদী পাড়ি দিতে হয় না, বাড়ি থেকে বের হলেই অথবা জানালা দিয়ে তাকালেই আমরা সবুজ ঘাসের দেখা পাই।

Gramineae গোত্রের উদ্ভিদগুলোকে আমরা ঘাস হিসেবে জানি। প্রজাতির সংখ্যা হিসেবে ৬০০০ এর বেশি প্রজাতির ঘাস রয়েছে। আকারেও রয়েছে বৈচিত্র, ছোট ছোট দুর্বাঘাস থেকে শুরু করে হতে পারে ৪০ মিটার বা ১২০ ফুট পর্যন্ত।

আমরা প্রতিদিন সিদ্ধ চাল, মানে ভাত খাই। গমের রুটি আমাদের খাদ্যতালিকার গুরুত্বপূর্ণ অংশ। ধান, গম, ভূট্টা, আঁখসহ আমাদের সাধারণ খাবারগুলোর অনেকগুলোই ঘাস হিসেবে গণ্য। মানে দাঁড়াচ্ছে, শুধু গরুই ঘাস খায় না, মানুষও ঘাস খায়। এটা নিয়ে রাজনীতির কিছু নেই।

আরেকটি খাবার যা ইচ্ছায় অনিচ্ছায় আমাদের বহু সময় খেতে হয়। তাছাড়া আমরা কথায় কথায় অন্যকে এটি দিয়েও থাকি। বাঁশের কথা বলছিলাম। হ্যাঁ, এটাও এক ধরণের ঘাস। তবে বাঁশ শুধু মানুষই খায় না, আরেকটি প্রাণী বাঁশ খেয়েই বড় হয়, পান্ডা।

কাগজ, ফ্যাব্রিক্স,… তৈরিতে ঘাস ব্যবহার হয়। তাছাড়া বাড়ি তৈরিতেও বাঁশ খড়ের ব্যবহার হয়। এমনকি, ঘাস আপনাকে বড়লোক্সও বানাতে পারে। ক্রীড়াভূমিসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে কৃত্রিম ঘাসের বিশেষ চাহিদা। তাই ঘাস উৎপাদন শিল্প একটা মিলিয়ন ডলার বিজনেস।

সোর্স

0 0 vote
Article Rating
Default image
তাহমিদ হাসান
এইতো, প্রতি ষাট সেকেন্ডে জীবন থেকে একটি করে মিনিট মুছে যাচ্ছে, আর এভাবেই এগিয়ে চলেছি মৃত্যুর পথে, নিজ ঠিকানায়। জীবন বড় অদ্ভুত, তাই না?
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x